২৯শে সেপ্টেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ, বুধবার

 

শপথ নিয়েই নরেন্দ্র মোদিকে মমতা ব্যানার্জির চিঠি

আপডেট: মে ৬, ২০২১

  • ফেইসবুক শেয়ার করুন

নেক্সটনিউজ প্রতিবেদক :  তৃতীয়বার মুখ্যমন্ত্রী হিসাবে শপথ নিয়ে কোভিড মোকাবিলায় একগুচ্ছ জরুরি কর্মসূচি নেওয়ার পাশাপাশি কেন্দ্রীয় সাহায্য চেয়ে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিকে চিঠি দিয়েছেন মমতা ব্যানার্জি।

চিঠিতে অক্সিজেন, টিকা বণ্টন নিয়ে স্বচ্ছ নীতি প্রণয়নের দাবির পাশাপাশি কেন্দ্রের কাছে ৫০০ টন অক্সিজেন চাওয়া হয়েছে। দেশজুড়ে বিনামূল্যে টিকাকরণেরও সঙ্গে ১০ হাজার রেমডিসিভির ও তার বিকল্প হিসাবে তোষিজুমাব ইনজেকশনের হাজারটি ভায়াল চেয়েছেন মমতা।

মমতা বুধবার মুখ্যমন্ত্রী হিসাবে শপথ নেন। মন্ত্রিসভার অন্য সদস্যরা রোববার শপথ নেবেন। শপথ অনুষ্ঠানে স্পিকার বিমান বন্দ্যোপাধ্যায়, প্রোটেম স্পিকার সুব্রত মুখোপাধ্যায়, সংসদ সদস্য দেব, শতাব্দী রায় এবং অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়। এদিকে মমতার শপথে আমন্ত্রণ পাওয়া সত্ত্বেও ভোটের পর লাগামহীন হিংসার অভিযোগ তুলে রাজভবনের অনুষ্ঠান বয়কট করে বিজেপি। মমতা শপথ নেওয়ার পর মোদিকে চিঠি লেখার পাশাপাশি টুইট করে পাল্টা ধন্যবাদ জানিয়েছেন। ২ মে ফল প্রকাশের পর মোদি সরাসরি মমতাকে ফোন বা শুভেচ্ছা জানাননি। শুধু টুইট করেছিলেন। মমতাও পাল্টা টুইট করলেন।

ভয়ংকর কোভিড পরিস্থিতিতে বর্ণাঢ্য নয়, বরং একেবারে অনাড়ম্বরেই শেষ হয় শপথ গ্রহণ অনুষ্ঠান। সর্বসাকুল্যে অতিথি ছিলেন ৫০ জন। ছিলেন না সিপিএম, বিজেপির কোনো প্রতিনিধি। ভারতীয় সময় ১০টা ৪৫ মিনিটে রাজভবনের ঐতিহাসিক থ্রোনরুমে শুরু হয় শপথ অনুষ্ঠান। রাজ্যপাল জগদীপ ধনকড় মমতাকে শপথ পড়ান।

এরপর সাংবিধানিক রীতি মেনে মুখ্যমন্ত্রী হিসাবে নিজের শপথরক্ষার প্রতিশ্রুতিতে নির্দিষ্ট কাগজে স্বাক্ষর করেন মমতা। সংক্ষিপ্ত বার্তায় সবাইকে পালটা ধন্যবাদ জানান তিনি। কোভিড পরিস্থিতিতে সবাইকে এ শুভক্ষণের সাক্ষী হওয়ার জন্য আমন্ত্রণ জানাতে পারেননি বলে দুঃখপ্রকাশ করেন। কোভিড মোকাবিলাই নতুন সরকারের অগ্রাধিকার- পুনরায় সেই কথাই উল্লেখ করেন তিনি। ভোট পরবর্তী পরিস্থিতিতে রাজ্যের নানা জায়গায় হিংসা বন্ধে শান্তি বজায় রাখার আহ্বান জানান মমতা।

শপথ নিয়েই মমতা চলে যান নবান্নে। সেখানে তাকে পুলিশের তরফে গার্ড অব অনার দেওয়া হয়। পরে মুখ্য সচিব, স্বরাষ্ট্র সচিবসহ একাধিক উচ্চপদস্থ আমলা এবং পুলিশ কর্মকর্তার সঙ্গে বৈঠক করেন তিনি। ভার্চুয়ালি সভায় উপস্থিত ছিলেন বিভিন্ন জেলার প্রশাসকরাও। করোনা মোকাবিলায় কী কী পদক্ষেপ করা হবে, সেই নিয়ে আলোচনার পাশাপাশি আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি নিয়ে আলোচনা হয়। পরে সাংবাদিকদের মুখোমুখি হন মমতা। সেখানে আইনশৃঙ্খলা নিয়ে নির্বাচন কমিশনকে দোষেন তিনি। পাশাপাশি জানিয়ে দেন, আর কোনোরকম অশান্তি মেনে নেওয়া হবে না।

দলীয় কার্যালয়ে শপথ নিলেন বিজেপির ৭৭ বিধায়ক : আমন্ত্রণ থাকা সত্ত্বেও মমতার শপথ অনুষ্ঠান বয়কট করে বিজেপি পার্টি অফিসেই শপথ নিলেন নবনির্বাচিত ৭৭ জন দলীয় বিধায়ক। সেখানে বিধায়কদের গণতন্ত্র রক্ষার শপথ বাক্য পাঠ করান বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ। বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতি জেপি নাড্ডাও সেখানে উপস্থিত ছিলেন। রাজ্যে লাগাতার বিজেপি কর্মীদের ওপর হামলার বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়াতেই এ শপথ। দলীয় কর্মীদের ওপর হামলার প্রতিবাদেই এদিন মমতার শপথ গ্রহণ অনুষ্ঠানে যাননি দিলীপ ঘোষ।

আসামে পালাচ্ছেন বিজেপিকর্মীরা : পশ্চিমবঙ্গে তৃণমূল কর্মীদের হিংসার হাত থেকে বাঁচতে আসামে পালাচ্ছেন বিজেপিকর্মীরা। এমনই দাবি করেছেন আসামের শিক্ষা ও স্বাস্থ্যমন্ত্রী হিমন্ত শর্মা। ৩০০ থেকে ৪০০ বিজেপিকর্মী সমর্থক বাংলা ছেড়ে আসামে গিয়ে আশ্রয় নিয়েছেন বলে দাবি করেছেন তিনি। এ নিয়ে তৃণমূল কংগ্রেস নেত্রী মমতাকে নিশানা করে হিমন্ত শর্মা বলেছেন, গণতন্ত্রের এই কুৎসিত হিংসা অবিলম্বে বন্ধ হওয়া জরুরি। প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিও এই নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন।

  • ফেইসবুক শেয়ার করুন
Website Design and Developed By Engineer BD Network