১৫ই জুন, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ, মঙ্গলবার

 

বিশ্ববিদ্যালয়ের ভর্তি পরীক্ষা পেছালো

আপডেট: মে ২১, ২০২১

  • ফেইসবুক শেয়ার করুন

নেক্সটনিউজ প্রতিবেদক : চলমান করোনা ভাইরাসের কারণে দেশের প্রথম সারির পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়গুলো ২০২০-২১ শিক্ষাবর্ষের ভর্তি পরীক্ষা পেছানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে। এই অবস্থায় অন্য বিশ্ববিদ্যালয়গুলোও তাদের ভর্তি পরীক্ষা নিয়ে নতুন করে চিন্তাভাবনা করছে। চলতি সপ্তাহে প্রকৌশল গুচ্ছসহ আরও কয়েকটি ইউনিভার্সিটির ভর্তি পরীক্ষা নিয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত আসতে পারে বলে জানা গেছে।

এদিকে বর্তমান পরিস্থিতি বিবেচনায় গতকাল বৃহস্পতিবার (২০ মে) রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের ভর্তি পরীক্ষার তারিখ পেছানো হয়েছে। এমতাবস্থায় দেশের অন্যান্য বিশ্ববিদ্যালয়ের ভর্তি পরীক্ষার তারিখও পেছানোর সম্ভাবনা দেখা দিয়েছে।

জানা গেছে, এবার দেশের ৪৯টি পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ের মধ্যে পুরোনো পাঁচটি বিশ্ববিদ্যালয় বুয়েট এবং ঢাকা, রাজশাহী, চট্টগ্রাম ও জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয় আলাদাভাবে পরীক্ষা নেবে।

এ বছর ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে ‘চ’ ইউনিটের মাধ্যমে আগামী ৩১ জুলাই ২০২০-২১ শিক্ষাবর্ষের ভর্তি যুদ্ধ শুরু হবে। সে হিসাবে ভর্তি পরীক্ষা দুমাসের বেশি পিছিয়ে গেছে। বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের ২০২০-২১ শিক্ষাবর্ষের ভর্তি পরীক্ষা এক মাস পেছানো হয়েছে। নতুন সময় অনুযায়ী আগামী ৩০ জুন ও ১ জুলাই প্রাথমিক বাছাই পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে। এর আগে বুয়েটের ভর্তি পরীক্ষা ১০ জুন থেকে নেওয়ার সময় নির্ধারণ করা ছিল।

রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের ভর্তি পরীক্ষা আগামী ১৪,১৫ ও ১৬ আগস্ট অনুষ্ঠিত হবে।এর আগে ১৪ জুন থেকে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের ভর্তি পরীক্ষা নেওয়ার সময় নির্ধারণ করা ছিল।

চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের ভর্তি পরীক্ষার চূড়ান্ত আবেদন শেষ হয়েছে ৭ মে। আগামী ২২ জুন ‘বি’ ইউনিটের মাধ্যমে ভর্তি যুদ্ধ শুরুর কথা রয়েছে। চলমান করোনাভাইরাসের কারণে সেই পরীক্ষা পেছাতে পারে। পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণ করে এই বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেয়ার কথা বলছে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন।

জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের ভর্তি পরীক্ষার আবেদন শুরু হবে ২০ জুন, চলবে ৩১ জুলাই পর্যন্ত। তবে জাবির ভর্তি পরীক্ষার তারিখ এখনও নির্ধারিত হয়নি। করোনাভাইরাসের পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণ করে ভর্তি পরীক্ষার তারিখসহ সংশ্লিষ্ট পরবর্তী সিদ্ধান্ত জানানো হবে বলে জানিয়েছেন বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় ভর্তি পরিচালনা কমিটির সদস্য সচিব ও ডেপুটি রেজিস্ট্রার (শিক্ষা) মো. আবু হাসান।

এবার তিন প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়, সাতটি কৃষি এবং ২০ সাধারণ, বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় তিন গুচ্ছে আলাদাভাবে পরীক্ষা নেবে। সাতটি কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ে ১০ জুন পর্যন্ত আবেদন নেওয়া হবে। ৩১ জুলাই এ ভর্তি পরীক্ষা হওয়ার কথা রয়েছে। এছাড়া তিন প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ে রুয়েট, চুয়েট ও কুয়েত আবেদন ৮ মে শেষ হয়েছে। এ গুচ্ছের পরীক্ষা হওয়ার কথা ১২ জুন। বাকি ২০ বিশ্ববিদ্যালয় গুচ্ছের পরীক্ষা ১৯ জুলাই থেকে হওয়ার কথা আছে।

আর জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ে ফলাফলের ভিত্তিতে ভর্তি করা হয়। জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয় ৮ জুন থেকে অনলাইনে আবেদন শুরুর কথা রয়েছে। এছাড়া সশস্ত্র বাহিনী পরিচালিত তিনটি বিশ্ববিদ্যালয়ে আলাদা ভর্তি পরীক্ষা হয়। ইতোমধ্যে গত ২ এপ্রিল মেডিকেল ভর্তি পরীক্ষা নেওয়া হয়েছে। ফলও ঘোষণা করা হয়েছে।

সূত্র জানায়, দেশে করোনা সংক্রমণ পরিস্থিতি খারাপ অবস্থায় রয়েছে। এমতাবস্থায় দেশের অধিকাংশ বিশ্ববিদ্যালয়ের ভর্তি পরীক্ষার তারিখ পুনর্বিন্যাস করা হতে পারে। ইতিমধ্যে ঢাবি, বুয়েট, রাবির ভর্তি পরীক্ষার সময়সূচি নতুন করে নির্ধারণ করা হয়েছে। বাকি বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর তারিখও ক্রমান্বয়ে পরিবর্তন করা হতে পারে।

ভর্তি পরীক্ষা পেছানোর বিষয়ে জানতে চাইলে প্রকৌশল গুচ্ছের আহবায়ক ও চট্টগ্রাম প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. রফিকুল আলম জানান, ভর্তি পরীক্ষা পেছানোসহ সার্বিক বিষয়ে আগামী সপ্তাহে সেন্ট্রাল এডমিশন কমিটির মিটিং রয়েছে। সেখানে এ বিষয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেয়া হবে। এখন কিছু বলা যাচ্ছে না।

তবে করোনা সংক্রমণ পরিস্থিতি বিবেচনায় ভর্তি পরীক্ষা পেছানোর সম্ভাবনা রয়েছে বলেও জানান তিনি।

এ প্রসঙ্গে জানতে চাইলে গুচ্ছ বিশ্ববিদ্যালয়সমূহের সমন্বিত ভর্তি কমিটির সচিব ও জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার প্রকৌশলী মো. ওহিদুজ্জামান বলেন, ভর্তি পরীক্ষা পেছানোর বিষয়ে এখনও কোন সিদ্ধান্ত হয়নি। এ বিষয়ে মিটিং ডেকে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে। তবে মিটিং কবে হতে পারে সে বিষয়ে নির্দিষ্ট কিছু জানাতে পারেন নি তিনি।

  • ফেইসবুক শেয়ার করুন
Website Design and Developed By Engineer BD Network