২১শে এপ্রিল, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ, রবিবার

 

কালিহাতীতে ধর্ষক মজিদকে আটক করেছে পুলিশ

আপডেট: মার্চ ৩০, ২০২৪

  • ফেইসবুক শেয়ার করুন

মনিরুজ্জামান  মতিন (টাঙ্গাইল) : টাঙ্গাইলের কালিহাতীতে অষ্টম শ্রেণীর মাদ্রাসা ছাত্রীকে (১৪) ধর্ষণের অভিযোগে আব্দুল মজিদ (৬০) নামে এক বৃদ্ধকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। গত ২৭ মার্চ বুধবার রাতে তাকে গ্রেফতার করা হয়। এর আগের দিন ২৬ মার্চ মঙ্গলবার  রাতে গ্রাম্য মাতবররা শালিশে অভিযুক্ত ধর্ষককে ৩ লাখ টাকা জরিমানা করে তাকে বাঁচানোর চেষ্টা করেন। গত ১১ মার্চ ঘটনাটি ঘটে উপজেলার পারখী ইউনিয়নের গোয়ারিয়া গ্রামে।

বৃহস্পতিবার কালিহাতী থানায় মামলা দায়ের করেন ধর্ষিতা ছাত্রীর বাবা। বৃহস্পতিবার দুপুরে গ্রেফতারকৃত  আব্দুল মজিদকে আদালতে পাঠানো হয়েছে।

গ্রেফতারকৃত ধর্ষক বৃদ্ধ আব্দুল মজিদ উপজেলার গোয়ারিয়া গ্রামের মৃত আফাজ উদ্দিন সিকদারের ছেলে।

স্থানীয়রা জানান, গ্রাম্য শালিশে সাত্তার তালুকদারের সভাপতিত্বে মুক্তা আলী, খান বাহাদুর, লেবু মিয়া, জুলহাস সহ ৫ জন মাতব্বরের মাধ্যমে জুড়িভোটে অভিযুক্ত মজিদকে ৩লাখ টাকা জরিমানা করা হয়। জরিমানা টাকা রফা দফা করতে এক মাস সময় নেয় মাতব্বরেরা।

মামলার এজাহার ও ধর্ষিতার পারিবারিক সূত্রে জানা যায়, ১১ মার্চ অভিযুক্ত আব্দুল মজিদ প্রতিবেশীর সুবাদে তার আত্মীয় সাথে ধর্ষিতা ছাত্রীর পিতাকে বিয়ের আশ্বাস দিয়ে টাঙ্গাইল ও মধুপুর নিয়ে যায়। পরে রাত ১০ টার দিকে কালিহাতীর গোয়ারিয়া গ্রামে অভিযুক্ত মজিদের শ্যালক শফিকের বাড়িতে নিয়ে যায়। প্রকৃতির ডাকে মাদ্রাসা ছাত্রী টয়লেটে গেলে আব্দুল মজিদ কৌশলে টয়লেটে প্রবেশ করে ওই ছাত্রীকে জোরপূর্বক ধর্ষণ করে।

এ সময় মাদ্রাসা ছাত্রীকে ভয় দেখিয়ে ঘটনা কাউকে বললে খুন করার হুমকি দেয়। এই ভয়ে সে ঘটনা গোপন রেখে কাউকে জানায়নি। পরে ৩/৪ দিন পর সবাইকে জানায় ।

মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা ও কালিহাতী থানার এসআই ইমাম আলী বলেন, ” ভুক্তভোগী ছাত্রীকে জিজ্ঞাসাবাদের পর ঘটনার সত্যতা পেয়ে মামলা করা হয়েছে। ডাক্তারি পরীক্ষার জন্য ওই ছাত্রীকে টাঙ্গাইল জেনারেল হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। বৃহস্পতিবার দুপুরে অভিযুক্ত আব্দুল মজিদকে টাঙ্গাইল আদালতে পাঠানো  হয়েছে। ঘটনাটি এলাকায় চাঞ্চল্যের সৃষ্টি করেছে।

  • ফেইসবুক শেয়ার করুন
Website Design and Developed By Engineer BD Network