৩০শে নভেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ, মঙ্গলবার

 

কালিহাতী নার্সিং ইনস্টিটিউটে নবীন বরণ অনুষ্ঠিত

আপডেট: নভেম্বর ১১, ২০২১

  • ফেইসবুক শেয়ার করুন

মনির হোসেন,টাঙ্গাইল : টাঙ্গাইলের কালিহাতী নার্সিং ইনস্টিটিউটের (অষ্টম ব্যাচ) প্রথম বর্ষের ছাত্র- ছাত্রীদের নবীন বরণ অনুষ্ঠিত হয়েছে।

বৃহস্পতিবার (১১ নভেম্বর) দুপুরে উপজেলা সদরের রুপালি ডিজিটাল ডায়াগনস্টিক এন্ড কনসালটেশন সেন্টারের সামনে
আয়োজিত নবীন বরণ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. উম্মে রুমান সিদ্দিকী।

এসময় কালিহাতী নার্সিং ইনস্টিটিউটের অধ্যক্ষ সুলতানা জাহানের সভাপতিত্বে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, অত্র প্রতিষ্ঠানের চেয়ারম্যান ডা. মিজানুর রহমান, পরিচালক আব্দুল আজিজ, হাসান হাসনাত ও আরিফুল ইসলাম প্রমুখ।
এসময় অন্যান্যের মধ্যে আরও উপস্থিত ছিলেন ঘাটাইল উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের কনসালটেন্ট (শিশু) ডা. কুমার বিশ্বজিৎ পাল, কালিহাতী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের নার্সিং অফিসার ড. জাহাঙ্গীর আলম ও টাঙ্গাইল শেখ হাসিনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের নার্সিং অফিসার আমিনুল ইসলাম।

অনুষ্ঠানে ডা. মিজানুর রহমান বলেন, নার্সিং পেশাকে স্বয়ং আল্লাহ মর্যাদা দিয়েছেন। নার্সিং পেশায় এসে মায়ের ভালোবাসাকে উপলদ্ধি করতে হবে। কারণ নার্সিং শুরু হয় মায়ের কোল থেকে। একজন মা যেমন কোনো ধরনের প্রতিদান ছাড়াই শিশুকে যত্ন ও সেবা দিয়ে থাকেন, তেমনি রোগীদেরও সেবা দিতে হবে নার্সদের।

মায়ের ভালোবাসা বুঝতে না পারলে আমরা কিছুই করতে পারবো না। শুধু সাদা পোশাক পড়লেই হবে না, মায়ের ভালোবাসা বুঝতে হবে।

আমি আশা করবো এখানে যারা শিক্ষা নিতে এসেছে তারা এটা উপলদ্ধি করতে পারবে এবং শ্রেষ্ঠ নার্স হিসেবে নিজেকে প্রতিষ্ঠিত করবে।

ডা. উম্মে রুমানা সিদ্দিকী বলেন, চিকিৎসক হিসেবে আমি রোগীর কাছে কতক্ষণ থাকি। বরং নার্সরা ৯০ শতাংশ সময় রোগীর কাছে থাকেন। তাদের সুস্থ করে তুলতে নার্সদের অবদানই বেশি। এ কারণে নার্সিং পেশা সম্পর্কে ধারণার পাশাপাশি এ পেশার প্রতি ভালোবাসা থাকতে হবে।
দেশের বাইরে নার্সদের যে সম্মান করা হয় সেটা না দেখলে বিশ্বাস করা যায় না। বাস্তব শিক্ষা গ্রহণ করে রোগীদের সেবা দিয়ে পেশায় সুনাম অর্জন করবে, এটাই আশা করি।

  • ফেইসবুক শেয়ার করুন
Website Design and Developed By Engineer BD Network