১৫ই জুন, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ, মঙ্গলবার

 

মাওলানা ভাসানী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসির বিরুদ্ধে মানব বন্ধন

আপডেট: জুন ৯, ২০২১

  • ফেইসবুক শেয়ার করুন

নেক্সটনিউজ প্রতিবেদক,টাঙ্গাইল :  মজলুম জননেতা মওলানা আবদুল হামিদ খান ভাসনীর স্মৃতি বিজরিত মাওলানা ভাসানী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃক সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ভূমি সমস্যা ও গাছ নিধনের প্রতিবাদে সমাবেশ ও মানববন্ধন করেছে ১৫টি প্রতিষ্ঠান। মওলানা ভাসানী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (মাভাবিপ্রবি) ভিসির বিরুদ্ধে এসব অভিযোগ তোলা হয়। বুধবার সকালে টাঙ্গাইল প্রেসক্লাবের সামনে এ মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়। মানববন্ধনে মাভাবিপ্রবি ছাড়াও অনিয়মতান্ত্রিকভাবে মওলানা হামিদ খান ভাসানী প্রতিষ্ঠিত আরও ৭টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে গাছকাটাসহ নানা অনিয়ম তুলে ধরেন। মানবন্ধনে অংশ নেওয়া ১৫ প্রতিষ্ঠানের মধ্যে ৭টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ও ৮টি সংগঠন রয়েছে।

মওলানা ভাসানী ফাউন্ডেশন, মওলানা ভাসানী অনুসারী পরিষদ, খোদা-খেদমতগার, মওলানা ভাসানী আদর্শ অনুশীলন পরিষদ, মওলানা ভাসানী মুরিদান ও অনুসারী সংঘ, মওলানা ভাসানী স্মৃতি সংসদ, মওলানা ভাসানী স্মৃতি পরিষদ, মওলানা ভাসানী পরিষদ। এবং বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠান অংশ নেয়া মওলানা ভাসানী আদর্শ কলেনজ, ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় হাইস্কুল, ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় সরকারী বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়, ইসলামী বিশ্বদ্যিালয় সরকারী শিশু স্কুল, রানী বিনোমোনী সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়, ইসলামী বিশ্বদ্যিালয় সূচী শিল্প স্কুল, ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় তালিমাতে কোরআন ও সুন্নাহ মানববন্ধনে অংশ নেয়।

মানববন্ধনে বক্তারা বলেন, মওলানা ভাসানী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (মাভাবিপ্রবি) ভিসি ড. মো. আলাউদ্দিন অনিয়মতান্ত্রিকভাবে মওলানা ভাসানীর প্রতিষ্ঠিত অন্যান্য ৭টি প্রতিষ্ঠানের ৫১টি গাছ কেটে বিক্রি করেন। যার মূল্য ৪ লাখ ৫ হাজার টাকা। প্রকৃতির সৌন্দর্য নষ্ট করে এসব গাছ কাটা বন্ধের দাবি জানান। যেসব গাছ কাটা হয়েছে সেগুলো বিক্রির টাকা সরকারের কোষাগারে দেওয়ার দাবি করেন তারা। এরপর নতুন করে আর কোন গাছ কেটে ভিসি যেন স্থানীয় পরিবেশ নষ্ট না করে এব্যাপারে সরকারের হস্তক্ষেপ কামনা করেন।

বক্তারা বলেন, মাভাবিপ্রবি শুধু মওলানা ভাসানীর আদর্শের প্রতিষ্ঠান নয়। বাকী ৭টি প্রতিষ্ঠানও মওলানা ভাসানীর আদর্শের প্রতিষ্ঠান। সবগুলো প্রতিষ্ঠান একে-অপরের সাথে সম্পৃক্ত। প্রত্যেকটি প্রতিষ্ঠানের পরিবেশ রক্ষা করা প্রতিটি প্রতিষ্ঠানের দায়িত্ব। গাছ কাটা বন্ধ না করলে জোড়ালো আন্দোলনের হুমকি দেন এসব প্রতিষ্ঠানের কর্মরত শিক্ষক শিক্ষাকাসহ সংগঠনগুলোর নেতাকর্মীরা।

এসময় বক্তব্য রাখেন, ভাসানী পরিষদের কেন্দ্রীয় সভাপতি কবি বুলবুল খান মাহবুব, ভাসানী ফাউন্ডেশনের সাধারণ সম্পাদক মাহমুদুল হক সানু , সিপিবির সভাপতি আব্দুর রাজ্জাক, সাধারণ সম্পাদক ওয়াহেদুজ্জামান মতি, ভাসানী অনুসারী পরিষদের সাধারণ সম্পাদক শোভা খানসুর, টেকনিক্যাল কলেজের অধ্যক্ষ দেলোয়ার হোসেন, ইসলামিক বিশ্ববিদ্যালয় শিশু স্কুলের প্রধান শিক্ষিকা আফরোজা বেগম, রানী দিনিমনি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষিকা শামিমা ইসলাম, ইসলামিক বালক উচ্চ বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক মামুনুর রহমান, ভাসানী মুরিদান অনুসারী সঙ্গের সাধারণ সম্পাদক আবু সাইদ আজাদ, সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব ও মানবাধিকার কর্মী আব্দুল গণি আল-রুহি, ভাসানী স্মৃতি সংসদের সাধারণ সম্পাদক এনায়েত করিম প্রমুখ

  • ফেইসবুক শেয়ার করুন
Website Design and Developed By Engineer BD Network