২৪শে জুলাই, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ, বুধবার

 

সৈয়দপুরে ভ্যান চুরি সন্দেহে পিটিয়ে ৭ জনকে আহত করল প্রতিপক্ষ

আপডেট: আগস্ট ১৯, ২০২০

  • ফেইসবুক শেয়ার করুন

মোঃ নাঈম শাহ্, নীলফামারী থেকে : নীলফামারীর সৈয়দপুরে ভ্যান চুরি যাওয়া ঘটনাকে কেন্দ্র করে দু-গ্রুপের সংঘর্ষে প্রতিপক্ষের আঘাতে সাতজন আহত হয় এর মধ্যে ৪ জনের অবস্থা গুরুতর হলে সৈয়দপুর ১০০ শয্যা হাসপাতালে ও রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করানো হয়। ঘটনাটি ঘটে গত ১৫ই আগস্ট রাত ১০টায় সৈয়দপুর উপজেলার কাশিরাম বেলপুকুর ইউনিয়নের সাতপাই ছোট দেড়ানী পাড়ায়।

থানার এজাহার সূত্রে জানা যায়, গত ১৪ই আগস্ট ছোট দেড়ানী পাড়ার এসলামের ছেলে মাহবুলের বাড়ি থেকে একটি ভ্যান চুরি হয়ে যায়। ভ্যান চুরি যাওয়াকে নিয়ে একই গ্রামের মৃত আইজুল হক এর ছেলে এনামুল হক ওরফে ভুতুল কে মিথ্যে সন্দেহ করে। এই সন্দেহের বসে গত ১৫ই আগস্ট রাতে মাহবুল ভ্যান চুরির বিষয়ে ভুতুলকে জিজ্ঞাসা করলে এক পর্যায়ে ভুতুলকে একা পেয়ে মারতে শুরু করলে ভুতুরের চিৎকার শুনে ফজলার রহমান, রশিদুল ইসলাম, আব্দুর রাজ্জাক ও মিজানুরসহ তার পরিবারের লোকজন তাকে বাচাতে আসলে পূর্ব পরিকল্পিতভাবে তাদেরকেও মাইরডাং শুরু করে মজিবর, এসলাম, সেকেন্দার, এসকার, মজিদুল, মাহবুল, রবিউল, রজিত, এসরাফুল, সাজু, জসিমসহ অজ্ঞাত ব্যক্তিরা দেশীয় অস্ত্র দিয়ে তাদের মারতে শুরু করে। এতে ৭জন আহত হলেও ফজলার রহমান, রশিদুল ইসলাম, আব্দুর রাজ্জাক ও মুক্তা আক্তার গুরুতর আহত অবস্থায় সৈয়দপুর ১০০ শয্যা বিশিষ্ট হাসপাতালে ভর্তি হয় এর মধ্যে ফজলার রহমানের অবস্থা শঙ্কাজনক হলে তাকে উন্নত চিকিৎসার জন্য রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়। গুরুতর আহতরা হলেন ফজলার রহমান (৫০)এর একটি হাত ভেঙে যায়,রশিদুল ইসলাম(২৮),আব্দুর রাজ্জাক (৩৬)ও মিজানুর (৪০) এর মাথা ফেটে যায় এবং বাকি ৩জন চিকিৎসাধীন রয়েছেন। পরিবারের অন্যান্যরা যখন চিকিৎসার কাজে ব্যস্ত তখন প্রতিপক্ষরা বাড়ীতে থাকা মহিলাদের উপর হামলা করে বাড়ীতে আগুন লাগিয়ে দেয়। সৈয়দপুর ফাঁয়ার সার্ভিস একটি ইউনিট ঘটনাস্থলে গিয়ে আগুন নিভায়।

এ বিষয়ে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার আবুল বাশার মোহাম্মদ আতিকুর রহমান বলেন, মামলা হয়েছে অতি দ্রুত আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

  • ফেইসবুক শেয়ার করুন
Website Design and Developed By Engineer BD Network